শিশু হাফেজে কোরআন তানভীর আব্দুল্লাহ তালহার ছিন্ন মস্তক সেপটিক ট্যাংক থেকে উদ্ধার

রংপুর মহানগরীতে একটি মাদরাসায় হেফজ বিভাগের ছাত্র তানভির আব্দুল্লাহ তালহার মস্তকবিহীন লাশ উদ্ধারের ঘটনায় ভগিবালাপাড়া জামে মসজিদের খাদেমকে ৫ দিনের পুলিশি রিমান্ড দিয়েছে আদালত। সৎ মায়ের পরকীয়া, পারিবারিক শত্রুতাসহ বেশ কয়েকটি বিষয় সামনে রেখে পুলিশ তদন্ত করছে।

 

কোতয়ালী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বাবুল মিঞা জানান, ‘হত্যার ঘটনায় শনিবার রাতে কোতয়ালী থানায় আসামি অজ্ঞাত উল্লেখ করে হত্যা মামলা দায়ের করেন তালহার চাচা জাহিদুল ইসলাম। ওই মামলায় আগে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটককৃত ভগিবালাপাড়া জামে মসজিদের খাদেম নাজমুল ইসলামকে শনিবার রাতেই রংপুর চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে উপস্থিত করে ১০ দিনের রিমান্ড চাওয়া হয়। আদালতের বিচারক তারিক হাসান ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। তাকে আদালতের নিয়মকানুন মেনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।’

 

এদিকে হত্যাকাণ্ডটি স্পর্শকাতর হওয়ায় তদন্তরত সংস্থাগুলো বিভিন্ন বিষয় খতিয়ে দেখছে। ওসি জানান, হত্যাকাণ্ডটি খুবই স্পর্শকাতর। কোরআনের একজন হাফেজকে যেভাবে মাথা শরীর থেকে বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে তাতে নৃশংসতার বহুমাত্রিকতা স্থান পেয়েছে। এই হত্যা ভাড়াটিয়া পেশাদার কোনো গ্রুপ করেছে কি-না, পরকীয়াসহ একাধিক বিভিন্ন বিষয়ে তদন্ত করা হচ্ছে। খুব শীঘ্রই এই নৃশংস হত্যার ক্লু মিডিয়াকে জানানো হবে।

 

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কোতয়ালী থানার এসআই জাবেদ আলী পিপিএম জানান, ঘটনাটির বিভিন্ন দিক বিবেচনা করে ভগিবালাপাড়ার রহমানিয়া নুরানী হাফিজিয়া মাদরাসার প্রধান শিক্ষক হাফেজ মেহেদী হাসান, সহকারী শিক্ষক হাফেজ ইমরান হোসেন, মসজিদের নাজমুল ইসলাম, মোয়াজ্জিন তাসকিরুল ইসলাম, মাদরাসার শিক্ষার্থী আজহার, রেজাউল করিম, মানিক,আরমান ও ফেরদৌসকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। এরমধ্যে মসজিদের খাদেম নাজমুলকে ওই মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। অন্যদেরও জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

 

সূত্র জানায়, মসজিদের দোতলার ছাদের চাবি থাকে খাদেমের কাছে। কিন্তু পুলিশ তালা ভেঙে লাশ উদ্ধার করে। যেহেতু খাদেমের কাছে চাবি থাকে। তাই খাদেম নাজমুল এই মামলার গুরুত্বপূর্ণ সাক্ষী বলে মনে করছে তদন্ত সংস্থাগুলো। তাকে রিমান্ডে নিয়ে নিবিড়ভাবে জিজ্ঞাসাবাদ করে প্রকৃত ক্লু উদ্ধার করতে চাইছে পুলিশ।

 

প্রসঙ্গত: গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জের কলাপাড়া গ্রামের বাসিন্দা ৩৪ ইস্ট বেঙ্গল ব্যাটালিয়নে কর্মরত সার্জেন্ট খানজাহান আলী ও তার দ্বিতীয় স্ত্রী তাহমিনা আখতার বিথি রংপুর মহানগরীর ভগিবালাপাড়ায় বাসা ভাড়া নিয়ে থাকেন। ছেলে তালহাকে স্থানীয় রহমানিয়া নুরানী হাফিজিয়া মাদরাসায় হেফজ বিভাগে পড়াতেন।

 

আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি অন্যান্যদের সাথে আবু তালহারও কোরআনের হাফেজ হিসেবে মাথায় পাগড়ি দেয়ার কথা ছিল। বুধবার রাতে বাড়িতে না আসায় তালহার পিতামাতা ভেবেছিলেন মাদরাসায় আছে। সকালেও না ফেরায় তারা মাদরাসায় খোঁজ নিয়ে জানতে পারেন সেখানেও নেই। দুপুরে কোতয়ালী থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন তার পিতা। পরে সন্ধায় পুলিশ অভিযান চালিয়ে মাদরাসার পাশে ভগিবালাপাড়া জামে মসজিদের দ্বিতীয় তলার ছাদ থেকে তার মস্তকবিহীন লাশ উদ্ধার করে। পরে অনুসন্ধান চালিয়ে পাশের একটি ম্যানহোল থেকে মাথা উদ্ধার করে।

Author Details

Hard work can bring a smile on your face.

Related Posts

Post thumbnail
8 months ago

রোহিঙ্গা শিশুকে জড়িয়ে ধরে কেঁদে ফেললেন প্রধানমন্ত্রী

মিয়ানমার সেনাবাহিনীর অত্যাচার-নির্যাতনে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গা শিশুদের পরম মমতায় জড়িয়ে ধরেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তাদের ধরে তিনি কেঁদে ফেলেন। মঙ্গলবার...

5 months ago

বাড়িতে কুরআন রাখলেই শাস্তির নির্দেশ চিনের

ইসলাম প্রিয় ডেস্কঃ আবারও মুসলিমদের ধর্ম পালনের স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করল চিনা সরকার। এবার দেশটির দক্ষিণ-পশ্চিম প্রান্তের এশিয়া ম্যানর লাগোয়া শিনজিয়ান প্রদেশের...

Post thumbnail
8 months ago

স্বামী বাঁশের টুকরা কেটে বাচ্চার নাড়ি কেটে দেয়: রোহিঙ্গা মা

রোহিঙ্গাদের উপরে মিয়ানমার সেনাবাহিনী যে অমানুষিক নির্যাতন করছে তা অবর্ণনীয়। জীবিত অবস্থায় তাদেরকে পুড়িয়ে মারা সহ আরো জঘন্য ধরনের অত্যাচার...

Post thumbnail
8 months ago

রোহিঙ্গা নিধনের প্রতিবাদে ভোলায় ইসলামী আন্দোলনের বিক্ষোভ মিছিল

স্টাফ রিপোর্টার ॥ মিয়ানমারে আরাকানে রোহিঙ্গা মুসলমানদের উপর বৌদ্ধ সন্ত্রাসী ও সরকারের মদদপুষ্ট সেনাবাহিনী কর্তৃক রাষ্ট্রীয় ভাবে নির্যাতন, গনহত্যা, অগ্নিসংযোগ,...

Leave a Reply

Comment has been close by Administrator!