পানি পান করার সঠিক ৮ টি আদব জেনে নিন

রাসুলুল্লাহ (সাঃ) বলেছেনঃ নিশ্চয়ই আল্লাহ তাআলা সেই বন্দার প্রতি সন্তুষ্ট, যে খাওয়ার পরে তার জন্য আলহামদু লিলাহ বলে এবং পানীয় পান করার পরে তার শুকরিয়া স্বরূপ আল হামদু লিল্লাহ বলে ।(সহীহ মুসলিম , খণ্ড – ৮ , হাদিস নং – ৬৭৩৬ )

 

পানি পান করার আদব…
(১) বিসমিল্লাহ বলে পান করা সুন্নাত ।
উমার ইবনু আবূ সালামাহ (রা) থেকে বর্ণিত- তিনি বলেনঃআমি ছোট ছেলে হিসাবে রাসূলুল্লাহ্ (সাঃ)-এর তত্ত্বাবধানে ছিলাম। খাবার বাসনে আমার হাত ছুটাছুটি করতো। রাসূলুল্লাহ্ (সাঃ) আমাকে বললেনঃ হে বৎস! বিসমিল্লাহ বলে ডান হাতে আহার কর এবং তোমার কাছের থেকে খাও। এরপর থেকে আমি সব সময় এ পদ্ধতিতেই আহার করতাম। যার যার কাছ থেকে আহার করা।(সহীহ মুসলিম , খণ্ড – ৭ , হাদিস নং – ৫১০৮ , ৫১০৯
(২) ডান হাতে পান করা সুন্নাত ।
ইবন উমার (রাঃ) থেকে বর্ণিত যে, রাসুলুল্লাহ (সাঃ) বলেছেনঃ তোমাদের কেউ যখন আহার করে, তখন সে যেন ডান হাতে আহার করে । আর যখন পান করে সে যেন ডান হাতে পান করে । কারণ শয়তান বাম হাতে আহার করে এবং বাম হাতে পান করে ।(সহীহ মুসলিম , খণ্ড – ৭ , হাদিস নং – ৫১০৪
(৩) পান করার সময় পান পাত্রে শ্বাস – প্রশ্বাস ফেলা নিষেধ ।
(৪) এক ঢোকে পান না করে তিন ঢোকে পানি পান করা সুন্নাত ।
আনাস (রা) থেকে বর্ণিত – রাসূলুল্লাহ (সা) পানি পান করার সময় তিনবার শ্বাস নিতেন। (বুখারী, মুসলিম)
(৫) বসে পান করা সুন্নাত ।
আবু হুরায়রা (রাঃ) থেকে বর্ণিত- তিনি বলেনঃরাসূলুল্লাহ (সা) বলেছেনঃ তোমাদের কেউ যেন কখনো দাড়িয়ে পান না করে ।
(৬) পান করার পর তাহমীদ (আল্লাহর প্রশংসা ) করা সুন্নাত ।
আনাস ইবন মালিক (রাঃ) থেকে বর্ণিত – তিনি বলেন, রাসুলুল্লাহ (সা) বলেছেনঃ নিশ্চয়ই আল্লাহ তাআলা সেই বন্দার প্রতি সন্তুষ্ট, যে খাওয়ার পরে তার জন্য আলহামদু লিলাহ বলে এবং পানীয় পান করার পরে তার শুকরিয়া স্বরূপ আল হামদু লিল্লাহ বলে ।(সহীহ মুসলিম , খণ্ড – ৮ , হাদিস নং – ৬৭৩৬ )
(৭) পাত্রের ভাঙ্গা স্থান দিয়ে পান করা নিষেধ ।
(৮) পান পাত্রের (কলসি , জগ , বোতল ইত্যাদি) মুখে মুখ লাগিয়ে পানি পান করা নিষেধ ।
আবু সাঈদ (রাঃ) থেকে বর্ণিত – তিনি বলেনঃ নবী (সা) মশকের/পাত্রের মুখে মুখ লাগিয়ে পান করতে নিষেধ করেছেন ।

Author Details

Hard work can bring a smile on your face.

Related Posts

Post thumbnail
1 year ago

যে ব্যক্তি মানুষ হাসানোর জন্য মিথ্যা বলে তার জন্য ধ্বংস!

মিথ্যা ইসলামে সবচেয়ে নিকৃষ্ট হারাম গোনাহগুলির অন্যতম। মিথ্যা বলা মুনাফিকের অন্যতম চিহ্ন। মিথ্যা সর্বাবস্থায় হারাম। সবচেয়ে জঘন্যতম মিথ্যা হলো আল্লাহ...

Post thumbnail
1 year ago

কিয়ামতের দিবস কত বড় হবে?

”সুতরাং ঐ দিনের দীর্ঘ স্থায়ীত্বের কথা ভাবিয়া দেখ এবং ঐ দিন হিসাব নিকাশের জন্য অপেক্ষা করিতে যে কষ্ট হইবে উহার...

Post thumbnail
3 months ago

ঈমান হ্রাস বৃদ্ধি পায় কিনা?

ইমাম আবদুর রহমান আল-আউযা’ঈকে (রাহিমাহুল্লাহ) একবার প্রশ্ন করা হয়েছিলো যে, ঈমান কি বৃদ্ধি পায় কিনা। তিনি উত্তর দিয়েছিলেন: “হ্যাঁ, যতক্ষণ...

Leave a Reply

Comment has been close by Administrator!