শরীয়তে পাকা চুলে কাল খেজাব বা কলপ ব্যবহার করার বিধান কী?

Share This Post
Share This Post

ইসলামী শরীয়তে পাকা চুলে কাল খেজাব কলপ ব্যবহার করা হারাম।
চুলকে কাল রঙে রঞ্জিত করা হারাম। হাদীসে কাল খেজাব সম্পর্কে যে হুশিয়ারি উচ্চারিত হয়েছে তাতে একথাই প্রমাণিত হয় । এ প্রসঙ্গে রসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ” শেষ জামানায় একদল লোক কবুতরের বুকের রঙের ন্যায় কাল খেজাব ব্যবহার করবে । আর এ কারণেই তারা জান্নাতের কোন সুগন্ধি পাবে না।” আবু দাউদ ৪/৪১৯

 

অনেক চুলপাকা ব্যক্তিকে এ কাজ করতে দেখা যায়। তারা কাল রঙ দ্বারা সাদা চুল রাঙিয়ে নিজেদেরকে যুবক কিংবা অপেক্ষাকৃত কম বয়সী যাহির করে। এতে প্রতারণা, আল্লাহর সৃষ্টিকে গোপন করা ও মিথ্যা আত্ম তৃপ্তি ছাড়া আর কোন কিছুই হয় না। এর ফলে ব্যক্তিগত চালচলনের উপর নিঃসন্দেহে এক প্রকার কুপ্রভাব পড়ে। আর অন্য মানুষ এতে প্রতারিত হয়। নাবী করিম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম পাকা চুলে খেজাব লাগাতে বলেছিলেন মেহেদী বা এ ধরনের কোন জিনিস দ্বারা, যাতে হলুদ , লাল ইত্যাদি মৌলিক রঙ ফুটে ওঠে। তবে কাল রঙ দ্বারা রসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম কখনোই খেজাব লাগানোর অনুমতি দেন নাই।

 

আবু বকর (রা:) এর পিতা আবু কুহাফা (রা:) কে মক্কা বিজয়ের দিন যখন রসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর সামনে হাজির করা হয় তখন তাঁর চুল দাড়ি এত সাদা হয়ে গিয়েছিলো যে, তা সাগামা অর্থাৎ কাশ ফুলের ন্যায় ধবধবে দেখাচ্ছিল। তখন রসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তাকে দেখে বলেছিলেন, “তোমরা কোন কিছু দ্বারা এটা পরিবর্তন করে দাও। তবে কাল রঙ থেকে বিরত থাকো।” মুসলিম ৩/১৬৬৩।

 

এভাবে নারীদের চুলে কলপ ব্যবহার করার বিধান পুরুষদের চুলে কলপ ব্যবহার করার মতই।
এই দুনিয়াতে আমাদের মধ্যে নিষিদ্ধ যে কোন বস্তুর প্রতি আকর্ষণ সিদ্ধ যে কোন বস্তুর তুলনায় অতুলনীয় ভাবে বেশী। সকল রঙকে চুলে লাগানোর জন্য বৈধ করা হয়েছে মাত্র একটি রঙ বাদে। অথচ এই একটি রঙের প্রতি আকর্ষণ অন্য সকল রঙের তুলনায় হাজারো গুন বেশী। ইচ্ছা করলেই আমরা শরীয়ত বিরোধী এ কাজ থেকে বেচে থাকতে পারি। আল্লাহ আমাদের হেফাজত করুন। আমীন।

About Author

wavatar
Total Post: [145]
Hard work can bring a smile on your face.

Related Posts

Leave a Reply

You must be Login or Register to submit a comment.

Categories

Newsletter