TikTok (টিকটক/মিউজিক্যালি): একটি দাজ্জালি ফিৎনা (বিস্তারিত)

মহানবী (সাঃ) বলেন শেষ জামানায় দাজ্জালের সবচেয়ে বেশি অনুসরনকারী হবে নারীরা। এমনকি তাদের বাপ-ভাইয়েরা তাদের দড়ি দিয়ে বেঁধেও দাজ্জালের অনুসরন করা থেকে বিরত রাখতে পারবে না।

দাজ্জাল এখনো আসেনি, তবে দাজ্জালের ফিৎনা কিন্তু শুরু হয়ে গেছে। এই TikTok নামক সোস্যাল অ্যাপসটিকে দাজ্জালের ফিৎনার সাথে তুলনা করলাম কারন এটি আমাদের মা-বোনদের কে ঘরের ভেতরে রেখেই সুকৌশলে নর্তকী বানিয়ে দিচ্ছে! আর আমাদের মা-বোনরা ও এই ফাঁদে পা দিয়ে নিজের অজান্তে দাজ্জালকে অনুসরন করে চলেছে, দাজ্জালের আগমনের পথকে সুগম করে দিচ্ছে। কারন এমন একটা পৃথিবীতে দাজ্জালের আগমন ঘটবে যখন চারিদিকে অশ্লীলতা মহামারী আকার ধারন করবে, মা-বোনেরা পর্দা থেকে বেরিয়ে আসবে।

প্রিয় বোন! আপনি কি জানেন আপনার আপলোডকৃত ভিডিওটি কতো পুরুষ লালায়িত দৃষ্টিতে দেখে? আপনি কি জানেন কতো পুরুষ আপনাকে চোখ দিয়ে ধর্ষন করে?

যারা সস্তা সেলিব্রিটি হওয়ার আশায় নেচে নেচে ভিডিও আপলোড করেন তাদের স্মরন করিয়ে দিতে চাই, আপনি মারাও গেলেও কিন্তু ইন্টারনেটে আপনার ভিডিওটি থেকে যাবে। তখন যতোজন এই ভিডিও দেখবে কবরে আপনার আযাব ততোই বাড়তে থাকবে!

সুতরাং এখনই ভেবে দেখুন, যে কোনো মূহুর্তে মালাকুল মউত আপনার সামনে হাজির হয়ে যাবে। তখন কিন্তু খুব দেরী হয়ে যাবে।

মনে রাখবেন, নর্তকী মেয়েদের গর্ভে কখনো সুলতান সালাহউদ্দিন আইয়ুবী কিংবা রুকনুদ্দীন বাইবার্সের মতো সিংহ শার্দুল জন্ম নিতে পারে না। জন্ম নেয় নাস্তিক আসাদ নুর কিংবা আসিফ মহিউদ্দিনের মতো কুলাঙ্গার….

সুত্রঃ ইনস্টাগ্রাম